শিরোনাম

» দেশীয় পর্যটনে ক্ষতি প্রায় একশ কোটি টাকা

দেশীয় পর্যটনে ক্ষতি প্রায় একশ কোটি টাকা

করোনা মহামারীর আতঙ্কে বিশ্বজুড়ে হোঁচট খেয়েছে পর্যটন শিল্প। যার প্রভাব পড়ছে বাংলাদেশের পর্যটন শিল্পেও। প্রায় প্রতিদিনই যাত্রা বাতিল করছেন অসংখ্য বিদেশি পর্যটক। ট্যুর অপারেটরস অব বাংলাদেশ (টোয়াব) বলছে, বছরের শুরু থেকে এ পর্যন্ত দেশে পর্যটন খাতে ক্ষতির পরিমাণ প্রায় একশ কোটি টাকা।

দেশে পর্যটনের মৌসুম শুরু হয় অক্টোবর মাস থেকে। আর যা চলে এপ্রিল পর্যন্ত। ভ্রমণের জন্য নাতিশীতোষ্ণ আবহাওয়ার এ সময়টিকে বেছে নেন বিদেশি পর্যটকরা।

২০১৬ সালে গুলশানে হলি আর্টিজান হামলার পর একবার হোঁচট খায় দেশের পর্যটন শিল্প। গত কয়েক বছরে সেখান থেকে ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা চলছিলো। কিন্তু বছরের শুরুতে চীনে নভেল করোনাভাইরাস আতঙ্কে আবারও সংকটের মুখে দেশীয় পর্যটন শিল্প। তবে ট্যুর অপারেটররা বলছেন, অনেক বিদেশি পর্যটকই এ অবস্থায় ভ্রমণে স্বস্তিবোধ করছেন না।

ওদিকে পর্যটন মন্ত্রণালয় বলছে, বৈশ্বিক পর্যটনে করোনাভাইরাসের মারাত্মক আঘাতের প্রভাব পড়ছে এখানেও। বছরে ৫ থেকে ৬ লাখ বিদেশি পর্যটক বাংলাদেশ ভ্রমণ করেন। যার একটি বড় অংশই আসেন চীন থেকে। তবে করোনাভাইরাস সংক্রমণের চীনা পর্যটক আসা বন্ধ আছেন। সূত্র : ইন্ডিপেডেন্ট টিভি।